চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালেয়র বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি কর্মশালা সম্পন্ন


গত ২৬.০১.২০১৯ ইং তারিখে ফৌজদারহাটস্থ বিআইটিআইডি ভবনে বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের(ইউজিসি) তত্ত্বাবধানে অনুষ্ঠিত হয়ে গেল চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালেয়র বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি কর্মশালা। কর্মশালার সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য অধ্যাপক ডা. মো. ইসমাইল খান । প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরী কমিশনের সচিব ডা. মো. খালেদ। এতে অংশগ্রহন করেন চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত ২৭ টি চিকিৎসা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানের(মেডিকেল কলেজ,নার্সিং কলেজ,বিডিএস,হেলথ ইন্সটিটিউট) অধ্যক্ষগণ।

সভাপতির বক্তব্যে উপাচার্য ডা মো. ইসমাইল খান বলেন , সমগ্র চট্টগ্রামে মানসম্পন্ন সাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণে চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয় এর অধিভুক্ত প্রতিষ্ঠানসমূহকে সকল প্রকার সাহায্য করতে প্রস্তুত। প্রস্তাবিত বিশ্ববিদ্যালয়ের নির্মাণ কাজের প্রাথমিক প্রক্রিয়া চলমান। বিশ্ববিদ্যালয়ের মূল স্থাপত্য নকশার কাজ সম্পন্ন হয়েছে ।অতি দ্রুতই এর পরবর্তী নির্মাণ প্রক্রিয়া শুরু হবে বলে তিনি আশাবাদ ব্যাক্ত করেন। ডা মো. ইসমাইল খান আরো বলেন, SDG লক্ষ্যমাত্রার সাতটি গোলের মধ্যে চতুর্থ শিক্ষা এবং তৃতীয় সাস্থ্য।দুইটি গোলের দায়িত্বই অনেকাংশে চিকিৎসা শিক্ষার সাথে যারা জড়িত তাদের উপর বর্তাই। কাজেই প্রত্যেকটি মেডিকেল কলেজ,নার্সিং কলেজ ও অন্যান্য হেলথ ইন্সটিটিউটের নিজস্ব লক্ষ্য স্থির করতে হবে যাতে সামগ্রিক স্বাস্থ্যসেবার মানোন্নয়নে তারা অবদান রাখতে পারে।

সভায় ২০১৪-২০১৫ সাল হতে প্রচলিত বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি এর খুঁটিনাটি উপস্থিত অধ্যক্ষদের সামনে সাবলীল ভাবে তুলে ধরেন উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. ফজলুর রহমান। চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের অধিভুক্ত চিকিৎসা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানসমূহ তাদের তিনটি ত্রৈমাসিক ও একটি বার্ষিক প্রতিবেদনে নিজস্ব চাহিদা,কর্মপরিকল্পনা, লক্ষ্য ও বিগত অর্জনসমূহ ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষকে কিভাবে প্রেরণ করবে তা সবিস্তারে বর্ণনা করেন মো. ফজলুর রহমান। সভায় বক্তারা বলেন,এক একটি ধাপে প্রতিটি প্রতিষ্ঠান তাদের নিজস্ব বার্ষিক কর্মসম্পাদন চুক্তি অনুসারে উন্নয়ন কার্যক্রম পরিচালনা করবে ।প্রতিটি প্রতিষ্ঠানের ক্ষুদ্র লক্ষ্যসমূহ সার্বিকভাবে সমন্বয় ও বাস্তবায়নের মাধ্যমেই সম্ভব ভিশন-২০৪১ এ পৌছানো। SDG লক্ষ্য পূরণে সরকারী বেসরকারী প্রত্যেক প্রতিষ্ঠানের দায়বদ্ধতা রয়েছে। ইতোমধ্যে বাংলাদশের অবস্থান SDG বিভিন্ন সূচকে প্রশংসাজনক বলেও বক্তারা মন্তব্য করেন।

সভায় আরো উপস্থিত ছিলেন ইউজিসির অতিরিক্ত পরিচালক জাফর আহমেদ জাহাঙ্গীর,মাধ্যমিক ও উচ্চ মাধ্যমিক শিক্ষা বিভাগের উপ সচিব জাকিয়া পারভিন, ইউজিসির উপ সচিব শাহীন সিরাজ,ইউজিসির সিনিয়র সহকারী সচিব মোরশেদ আলম খন্দকার, এর চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ রেজিস্ট্রার ডা. হাসিনা নাসরীন,ইউজিসির সিনিয়র সহকারী পরিচালক মোহাম্মদ নজরুল ইসলাম,ইউজিসির সহকারী পরিচালক রবিউল ইসলাম, চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের ফোকাল পয়েন্ট মো. আলাউদ্দিন।

কর্মশালাটি সঞ্চালন করেন চট্টগ্রাম মেডিকেল বিশ্ববিদ্যালয়ের উপ রেজিস্ট্রার ডা. হাসিনা নাসরীন।